Type Here to Get Search Results !

শ্ৰীশ্ৰীযুগাচাৰ্য্য বাণী ও নির্দেশ স্বামী জীবাত্মানন্দ সংকলিত অমৃতকথা

শ্ৰীশ্ৰীযুগাচাৰ্য্য বাণী ও নির্দেশ স্বামী জীবাত্মানন্দ সংকলিত অমৃতকথা

১। যে ভারত একদিন ধর্মপ্রাণ, ধর্মনিষ্ঠ ছিল, ত্যাগ-আত্মবিসর্জন যেখানে জীবনের একমাত্র সাধনা, একমাত্র ব্রত ছিল, সেই ভারত আজ ধর্মকে পরিত্যাগ করিয়া ভােগবাদকেই চরমবাদ বলিয়া জীবনে বরণ করিয়া লইয়াছে। যে ভারতবাসী একদিন শৈশব হইতেই গুরুগৃহে থাকিয়া রিপু ও ইন্দ্রিয়ের সংযম, সেবা ও স্বার্থত্যাগ অভ্যাস করিত আজ সেই ভারতবাসী সমগ্র জীবন শধু বিষয়-সুখ-সম্ভোগ ও ইন্দ্রিয়-পরিতৃপ্তির জন্য ছুটিতেছে। সকলেই মায়ানমাহে মুগ্ধ হইয়| অনিত্য বিষয়কে আঁকড়াইয়া ধরিয়া আছে; | কেহই মােহমুক্ত হইয়া ভগবানকে লাভ করিতে চেষ্টা করিতেছে না। ফলে

নানাবিধ জ্বালা-যন্ত্রণা, অসুখ-অশান্তি আসিয়া ভারতবাসীকে চতুর্দিক হইতে | ঘিরিয়া ধরিয়াছে। ভারতের এই কলুষিত আবহাওয়ার পরিবর্তনের জন্য | আজ চাই লক্ষ লক্ষ ত্যাগী পুরুষ, যাঁহারা জীবনের সমস্ত ভােগ-সুখ, আরাম| বিরাম বিসর্জন দিয়া সমগ্র দেশময় একটা ত্যাগের ভাব, একটা ধর্মের আবহাওয়া সৃষ্টি করিবে। ভারতবর্ষ ত্যাগীর দেশ, ধর্মের রাজ্য ভারতবাসী অমৃতের সন্তান। ভারতের নরনারী, বালবৃদ্ধ যুবা ধর্মের জন্য জীবন ধারণ করিয়াছে। আবার প্রয়ােজন হইলে ধর্মের জন্যই জীবন বিসর্জন দিবে। | সুতরাং ভারতবাসী কখনও অন্য আদর্শ, অন্য কোন ভাবকে গ্রহণ করিতে

পারে না। তাই আজ একদল শিক্ষিত যুবককে ত্যাগব্রত গ্রহণ করিয়া বাহির | হইয়া আসিতে হইবে। তাহাদের ভােগবিমুখ, বিষয়-স্পৃহ, বৈরাগ্যপূর্ণ | জীবন, তাহাদের কঠোর সাধনা ও আত্মত্যাগ, তাঁহাদের পবিত্রতাপূর্ণ উন্নত

চরিত্রের সংস্পর্শে দেশের ভােগপ্রবণ পঙ্কিল মনােবৃত্তি পবিত্র ও বিশুদ্ধ হইবে। তখন সেই ত্যাগময় পবিত্র বিশুদ্ধ আবহাওয়ার মধ্যে নূতন সাধনার - ভিতরে নূতন আদর্শ নিয়া জন্মগ্রহণ করিবে ভারতের ভবিষ্যৎ বংশধর | আদর্শবান, নীতি পরায়ণ, স্বধর্মনিষ্ঠ খাটি ভারতীয় জাতি। এমনি ভাবেই ধীরে | ধীরে সমগ্র ভারত ত্যাগ, সংযম ও পবিত্রতার পথে অগ্রসর হইবে।।

২। এই যুগ মহাজাগরণের যুগ, এই যুগ মহামিলনের যুগ, এই যুগ। | মহাসমন্বয়, মহামুক্তির যুগ। | ৩। ভারত আর সুদীর্ঘকাল প্রসুপ্ত অবস্থায় অবস্থান করিবে না। ভারত | আবার জাগিবে, আবার উঠিবে, আবার ধর্ম ও আধ্যাত্মিকতাকে বরণ। করিয়া লইয়া জগদগুরুর আসনে উপবেশন করিবে।।

৪। ভারত! ভুলিও না তুমি ঋষির বংশধর। তােমার ধর্ম ও সমাজ ঋষির হস্তে গঠিত, ঋষির সনাতন অনুশাসনে অনুশাসিত, পরিচালিত; তােমার | জীবনের প্রত্যেকটি কর্তব্য সত্যদ্রষ্টা ঋষি নির্দিষ্ট। ত্যাগ, সংযম, সত্য ব্রহ্মচর্যই | তােমার সনাতন আদর্শ, জাতীয় জীবনের মূলমন্ত্র। এই আদর্শকে প্রাণপণে। | আঁকড়াইয়া ধরিয়া থাক, পড়িয়া গেলেও বিনাশনাই, পুনরভ্যুত্থান অবশ্যম্ভাবী। ব্রহ্মচর্য অবলম্বন কর। সমাজ ও জাতীয় জীবনে ব্রহ্মচর্য্যের অমােঘ বীৰ্ঘ্য | ও অক্ষয় ওজঃ বিদ্যুৎগতিতে সঞ্চরণ করিতে দাও; ভারত আবার সােনার | ভারতে পরিণত হইবে।।

৫। দেশ কি চায়, সমাজ-জাতির কীসের অভাব, তা বােঝে কে, কয়জন? | যে মন, যে বুদ্ধি কামনা বাসনার জ্বালায় জর্জরিত, রিপু ইন্দ্রিয়ের তাড়নায় | উৎপীড়িত; সেই মন, সেই বুদ্ধি দিয়ে কি দেশ সমাজ জাতির সমস্যার | সমাধান চলে?

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad